পরামর্শ দিয়েছেন

বিশেষজ্ঞ পুষ্টিবিদ

শেয়ার এবং প্রিন্ট করুন

ফুলকপির রেসিপি- ফুলকপির ফ্রায়েড রাইস – বাচ্চাদের জন্য মজা আর পুষ্টির এক দারুণ কম্বো

বাচ্চা ফুলকপি খেতে চায় না? তাহলে আজই রেসিপি দেখে বানিয়ে দিন মজাদার ও স্বাস্থ্যকর ফুলকপির ফ্রায়েড রাইস। এরপর দেখুন ম্যাজিক! বাচ্চারা এটা খুব মজা করে খাবে, সাথে অনেক স্বাস্থ্য উপকারও পাবে।
কারন,  ফুলকপিতে আছে বহুমুখী গুণ। এতে আছে পর্যাপ্ত পটাসিয়াম, ফসফরাস, ক্যালসিয়াম, সোডিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, আয়রন, ভিটামিন সি, এ সহ আরও অনেক প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান। এগুলো আমাদের বাচ্চাদের চুল, হাড় ও দাঁত মজবুত করা সহ পেটের নানা অসুখ রোধ করতেও বেশ কার্যকর। এতে থাকা সালফোরাফিন আল্ট্রা ভায়োলেট রশ্মির ক্ষতিকর প্রভাব থেকে বাচ্চার ত্বককে রক্ষা করে, এছাড়া সালফোরফেনের উপস্থিতি হৃৎপিণ্ড এবং কিডনির কার্যকারিতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। লেবুতে আছে ক্যালসিয়াম, ভিটামিন সি, ম্যাগনেসিয়াম, লিপিড ও প্রোটিন; যা স্কার্ভি প্রতিরোধ করে, হজমের সমস্যা নিরাময় করে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে, ডায়রিয়া নিয়ন্ত্রণ করে এবং পানিশূন্যতা দূর করে। ডিম প্রোটিনের প্রধান উৎস। এতে আরও আছে জিংক, ক্যালসিয়াম এবং আয়রন; যা লিভার ও হার্টের জন্য খুবই উপকারী, শক্তি যোগায়, হাড় ও মস্তিষ্ক বিকাশে বিশেষ ভূমিকা রাখে। তাছাড়া গাজরের ভিটামিন এ, বেটা ক্যারোটিন, অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ও খনিজ লবণ বাচ্চাদের দৃষ্টিশক্তি শার্প করে এবং সেইসাথে বাড়িয়ে তোলে তার হজমশক্তি ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। এতো পুষ্টিগুণ আর স্বাস্থ্য উপকারিতা যদি এক রেসিপিতেই পাওয়া যায়; তাহলে সেটা না বানিয়ে কি থাকা যায়? আজই বানিয়ে খাওয়ান বাচ্চাকে!

উপকরণ: ছোট করে কাটা ফুলকপি ২ কাপ, মটরশুঁটি আর গাজর ১ কাপ, ফেটানো ডিম ২টি, পেঁয়াজ কিউব ১/৪ কাপ, রসুন ৩-৪ কোয়া (ছেঁচে নেওয়া), সয়া সস ২-৩ টেবিল-চামচ, ধনেপাতা কুচি পরিমাণমতো, কাঁচামরিচ কুচি ২-৩টি, অলিভ অয়েল ২ টেবিল-চামচ, গোলমরিচ-গুঁড়া স্বাদমতো, লেবুর রস আর লেবুর ছোকলা কুচি ১ চা-চামচ করে, লবণ স্বাদমতো।

প্রণালি: গাজর ও মটরশুঁটি ফুটন্ত গরম পানিতে ভাপ দিয়ে পানি ঝরিয়ে রাখুন। প্যানে সামান্য তেল গরম করে, সামান্য লবণ ও গোলমরিচ-গুঁড়া দিয়ে ডিম ফেটিয়ে অমলেট করে নিন। অমলেট ঝুরি ঝুরি করে রাখুন। একই প্যানে তেল গরম করে রসুন দিন। রসুনের সুগন্ধ বের হলে পেঁয়াজ, গাজর ও মটরশুঁটি দিয়ে ৪-৫ মিনিট ভেজে নিন। এবার ফুলকপি কুচি মিশিয়ে নিন। কয়েক মিনিট পর ডিম, সয়া সস, গোলমরিচ-গুঁড়া ও কাঁচামরিচ মিশিয়ে নিন। সব শেষে লেবুর রস, লেবুর ছোকলা এবং ধনেপাতা-কুচি মিশিয়ে নামিয়ে ফেলুন। গরম গরম পরিবেশন করুন ভিন্ন স্বাদের ফুলকপির ফ্রায়েড রাইস।

Leave a Reply