পরামর্শ দিয়েছেন

আমাতুল্লাহ শারমিন
ডায়েটিশান ও নিউট্রিশন স্পেশালিস্ট

শেয়ার এবং প্রিন্ট করুন

ইউটিআই হলে কী করবেন?

ইউটিআই

প্রায় প্রত্যেক নারীই, কখনোও না কখনোও প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া’র সমস্যায় ভুগেছেন; যাকে আমরা বলে থাকি ইউটিআই। এটি যে কতোটা বিরক্তিকর ও হতাশাজনক তা শুধু মেয়েরাই ভালো জানেন; কারণ, পুরুষদের তুলনায় নারীদের ইউটিআই-তে আক্রান্ত হওয়ার হার বেশি। নারীদের রিপ্রোডাক্টিভ অর্গান বেশী বড় হওয়াতে ইনফ্লামেশন বেশি হবার সম্ভাবনা থাকে। এজন্য সবসময় তাদের হাইড্রেটেড থাকতে হয় ও বেগ আসলেই প্রস্রাব করে ফেলার পরামর্শ দেওয়া হয়-যাতে সিস্টেম থেকে ব্যাকটেরিয়া বের হয়ে যেতে পারে।

ইউটিআই খুব সহজে কন্ট্রোল করা বা অ্যাভয়েড করা যায় যদি ব্যালেন্সড ডায়েট খাওয়া হয়, এমনকি অনেক সময় এটিই প্রথম চিকিৎসা। শুধু খাবার নয়, যেসব পানীয় আপনি পান করেন তার ও অনেক বড় প্রভাব রয়েছে ব্লাডারের স্বাস্থ্যের।

রিসার্চ বলে ইউরিন পিএইচ অনেক বড় ফ্যাকটর ইউরিনারী ট্রাকটে ব্যাকটেরীয়া আক্রমণের জন্য এবং আমাদের ডায়েট ইউরিন এর পিএইচকে অনেক বেশী প্রভাবিত করে। কিন্তু, ইউটিআই যদি হয়েই যায়, তখন আপনি কী করবেন? এক্ষেত্রে, ডাক্তারের পরামর্শ অনুসারে অ্যান্টিবায়োটিক নেবার আগে চেষ্টা করুন নিচের ডায়েটটি মেনে চলতে।

 পানি খাওয়ার কোনও বিকল্প নেই!

পানি খাওয়ার বিকল্প কিছুই হতে পারে না। যতো বেশি পানি খাবেন, ততো বেশি প্রস্রাব ক্লিয়ার হবে। আর যতো বেশি প্রস্রাব ক্লিয়ার হবে, ততো বেশি ব্যাকটেরিয়া শরীর থেকে বের হয়ে যাবে। তাই, প্রতিদিন হিসেব করে ৮ থেকে ১২ গ্লাস পানি খাবেন।

 চাই প্রোবায়োটিক

প্রবায়োটিক হল এক প্রকার ব্যাকটেরিয়া, যা আপনাকে হেলদি রাখতে সাহায্য করে। তাই, চেষ্টা করবেন আপনার ডায়েটে দই, কটেজ চিজ অথবা বাটার মিল্ক জাতীয় প্রোবায়োটিক ফুড রাখার। বিভিন্ন ফারমেনটেড ডেইরী প্রোডাকটস (fermented with good bacteria) ইউটিআই এর হার ৮০% পর্যন্ত কমিয়ে দেয়। এমন দই কিনে খাওয়া উচিত যেখানে লেখা থাকে “কনটেইন্স লাইন এন্ড অ্যাকটিভ কালচারস”। প্রোবায়োটিকে ভালো উপকারী ব্যাকটেরীয়া থাকে যা ইনফেকশনকে প্রতিরোধ করে এবং ইমিউন সিস্টেমকে শক্তিশালী করে।

 কলা

কলা এবং ফাইবার ফুড ইউরিনারি ট্র্যাক্ট এর হেলথের জন্য খুব ভালো, কারণ এগুলো রেগুলার বাওয়েল মুভমেন্ট এবং প্রসাবের বেগকে বাড়িয়ে দেয়।

 হাই-ফাইবার ফুডস

বিভিন্ন ধরনের হাই-ফাইবার ফুডস যেমন ডাল, বাদাম, ওটস, কলা, সবুজ রুটি ইত্যাদি প্রতিদিনের ডায়েটে রাখা উচিত। কেননা, এরা আপনার প্রতিদিনের বাওয়েল মুভমেন্ট ঠিক রেখে মূত্রাশয়ের উপর চাপ কমিয়ে ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়া বের করে দিতে সহায়তা করে।

 খেতে পারেন ক্র্যানবেরির জুস

ক্র্যানবেরিতে প্রান্থসায়ানিডিন নামক একটি রাসায়নিক যৌগ থাকে, যা মূত্রনালিতে লেগে থাকা ব্যাকটেরিয়াদের প্রতিরোধ করে। আপনার যদি ইউটিআই হয়ে থাকে, চেষ্টা করবেন মিষ্টি বা চিনি ছাড়া ক্র্যানবেরি জুস কিংবা পিউর ক্র্যানবেরি গ্রহণ করার। সবসময় চিনি বা মিষ্টি জাতীয় খাবার থেকে দূরে থাকবেন, যেহেতু তারা ভালোর চেয়ে ক্ষতি বেশি করে থাকে।

যেসব খাবার এডিয়ে চলবেন

আপনার এই ইনফেকশন হলে বিভিন্ন ধরনের খাবার যেমন ক্যাফিনেটেড ও কার্বোনেটেড পানীয়, ঝাল জাতীয় খাবার এবং এসিডিক ফল যেমন কমলা, আংগুর, লেবু ইত্যাদি থেকে দূরে থাকতে হবে। কেননা, এরা মূত্রাশয়ে সমস্যা সৃষ্টি করে। খাবারের মধ্যে চিনি ইনফেকশনকে বাড়িয়ে তোলে। তাই, এসময়ে মিষ্টি জাতীয় খাদ্য ও চকোলেট থেকে দূরে থাকা উচিত।

Leave a Reply